সিরিয়ার কবি আদুনিস-এর কবিতা

images

পাপের ভাষা

আমি আমার উত্তরাধিকার পুড়িয়ে ফেলি, আমি বলি:

“আমার জমিজমা অকর্ষিত, আর যৌবনে কোনও ঘাসভূমি ছিল না”।

ঈশ্বর ও শয়তান দুজনকেই ছাপিয়ে যাই

(ঈশ্বর ও শয়তানের পথের ওপারে আমার পথ )

আমি আমার বই-এর মুখোমুখি হই,

বজ্রপাতের দ্যুতিময় মিছিলে,

চেঁচিয়ে উঠি:

“আমার পর কোনও স্বর্গ নেই, পতন নেই,”

আর পাপের ভাষা বিলোপ করে যাব।

গোপনীয়তার একটি গান

ওকে থাকতে দিন ওর গোপনীয়তায়।

অনেক সময়ে সমুদ্রকে ও নিজের কোলে বসায়

আর কখনও বা ওর জানালার নীচে।

ওকে থাকতে দিন ওর গোপনতায়।

ঘাসের ছদ্মবেশে থাকে ও

কিংবা পরে নেয় পাথরের মুখ।

ওকে থাকতে দিন ওর গোপনতায়।

ও হল প্রেমের চারাণভূমি

যা প্রতিটি ঋতুর সঙ্গে রঙ বদলায়,

হাতের তালু থেকে নামিয়ে দেয় গাছগুলোকে।

তোমার চোখ ও আমার মাঝে

যখন আমি মুগ্ধ হয়ে তোমার চোখের পানে তাকাই

আমি দেখতে পাই অতল সকাল

দেখি প্রাচীন কালের বিগত বছর

আর দেখি যে-বিষয়ে আমার কোনও জ্ঞান নেই

আর বুঝতে পারি সমগ্র বিশ্বপ্রকৃতি তুমুলভাবে ধেয়ে আসছে

তোমার চোখ ও আমার মাঝে।

About anubadak

আমি একজন অনুবাদক । এতাবৎ রেঁবো, বদল্যার, ককতো, জারা, সঁদরা, দালি, গিন্সবার্গ, লোরকা, ম্যানদেলস্টাম, আখমাতোভা, মায়াকভস্কি, নেরুদা, ফেরলিংঘেট্টি প্রমুখ অনুবাদ করেছি ।
This entry was posted in আরব কবিতা and tagged . Bookmark the permalink.

4 Responses to সিরিয়ার কবি আদুনিস-এর কবিতা

  1. Yashodhara Ray Chaudhuri বলেছেন:

    আদুনিস খুব ভাল লাগল। সবচেয়ে ভাল লাগল দ্বিতীয়টি, তারপর তৃতীয়টি। আরবি কবিতা বেশি পড়া নেই। তবে আফ্রিকার কবিতা, বা আমাদের দেশের আদিবাসী জনগোষ্ঠীর কবিতাতেও, খুব সহজে অ্যাবস্ট্র্যাক্ট বিষয়কে দেহ দান করে ফেলতে পারা আমরা দেখেছি। পাথর, নদী, ঘাস, এরা আসলে মানুষের খুব কাছের জিনিশ এদের কাছে। আকাশ, পাহাড়, অতল খাদ, উপত্যকাকে অনায়াসে মা বাবা ভাই বানিয়ে দিতে পারেন এরা। অসমিয়া কবিতা অনুবাদ করতে গিয়ে এটা দেখেছি… সমসাময়িক সমীর তাঁতির লেখায়।

  2. তমসো দীপ বলেছেন:

    তিনটি কবিতাই ভীষণ ভালো লাগলো

  3. shankar lahiri বলেছেন:

    খুব ভালো লাগলো অনুবাদগুলো । এডোনিস-এর কবিতা পাঠ (আরবি) শুনলাম ইউ-টিউবে । বেশ ড্রামাটিক ওঁর কন্ঠস্বর আর জেস্চারস ।
    আর নিউ ইয়র্ক নিয়ে কবিতাটাও । “The Funeral of New York” (written in 1971).

    Picture the earth as a pear
    or breast.
    Between such fruits and death
    survives an engineering trick:
    New York,
    Call it a city on four legs
    heading for murder
    while the drowned already moan
    in the distance.
    New York is a woman
    holding, according to history,
    a rag called liberty with one hand
    and strangling the earth with the other.
    —————
    আরও অনুবাদ চাই । Thanks.

  4. samir ahmed বলেছেন:

    dada,
    Thanx for nice translations. I am waiting for the next.

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s